কিছু কিছু চরিত্র সারা জীবনের মতো দাগ কেটে যায় দর্শকদের মনে৷ নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির ‘হাড্ডি’ ছবিটির এই চরিত্র একেবারেই সেরকম।Nawazuddin Siddique-র আসন্ন এই রিভেঞ্জ ড্রামা Haddi ছবিতে, নওয়াজের লুক দেখে রীতিমতো হতবাক হয়েছিলেন অনুরাগীরা৷ কেউ কেউ একঝলক দেখে চমকে গিয়েছিলেন! লম্বা চুল এবং কড়া মেকআপ-সহ ধূসর গাউন পরা লুকের এই মহিলা,  নওয়াজ নাকি অর্চনা পূরণ সিং?  দু’জনের মধ্যে যেন এতটুকু পার্থক্য নেই।

মেক-আপের ঠিক কতখানি ক্ষমতা, কী কী করতে পারে মেক-আপ– সেটার আন্দাজ বোধহয় আমাদের সকলেরই কম বেশি আছে। একটা মানুষকে আদ্যোপান্ত বদলে  দিতে পারে আধুনিক সময়ের প্রস্থেটিক মেক-আপ। আর সেটা আমরা দেখেছি সাম্প্রতিক ছবি ‘আয় খুকু আয়’ ছবিতে বা ‘গুমনামি’ ছবিতে প্রসেনজিতের ক্ষেত্রে৷ ঋত্বিক চক্রবর্তী  অভিনীত ছবি ‘ভিঞ্চি দা’, আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে৷  অমিতাভ বচ্চন অভিনীত ‘পা’, শাহরুখ খানের ‘ জিরো’ ছবিতেওঅনবদ্য মেক-আপ দেখেছি। দর্শকদের এই মেকওভারগুলো রীতিমতো বাকরুদ্ধ  করে দিয়েছিল। তবে উল্লিখিত এই ছবিগুলোই  শুধু নয়, অতীতে আরও বহু ছবিতে এরকম চোখ ধাঁধানো মেক-আপ দেখা গিয়েছে।নারী হিসেবে লুক বদলে এক সময় পর্দায় আলোড়ন তুলেছিলেন কমল হাসান, ‘চাচি ৪২০’ ছবিতে৷উদাহরণ এমন বহু আছে৷

সুতরাং নওয়াজের লুকস নিয়ে বিতর্ক চললেও– আদতে একজন রূপান্তরকামী মানুষের চরিত্রকে বাস্তবিক করে তোলার লক্ষ্যেই এই চ্যালেঞ্জ নিয়েছিলেন নওয়াজ৷ অভিনেতা হিসেবে কতটা সফল হয়েছেন তিনি নিজেকে এই চরিত্রে ফুটিয়ে তুলতে, তা জানতে হলে নতুন বছরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে দর্শকদের৷ ছবিটি আপাতত সেন্সরের ছাড়পত্র পেয়ে গিয়েছে৷

এর আগেও ‘হিরোপন্তি’ সিনেমায় এইধরনের একটি চরিত্রে তাঁকে দেখা গিয়েছিল৷তবে, এবারের বিষয় এক্কেবারে আলাদা। তাই নিজেকে দুমড়ে মুচড়ে তৈরি করেছেন তিনি। নওয়াজ জানান, যেহেতু একজন রূপান্তরকামী হিসেবে অভিনয় করছেন, তাই তাঁর সামাজিক দায়-দায়িত্ব অনেকটা।সমাজের কাছে সঠিক বার্তাটা যেন পৌঁছোয়, কারও ভাবাবেগে আঘাত না লাগে৷

এবারের  রূপান্তরকামী চরিত্রটির জন্য নানান ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছেন নওয়াজ। সেইসব কথাই শেয়ার করেছিলেন একটি সাক্ষাৎকারে৷ তাঁর কথায়, ‘হাড্ডি ছবিতে অনেক রূপান্তরকামী মানুষের সঙ্গে কাজ করেছি। তাঁদের সঙ্গে থেকেছি, সময় কাটিয়েছি। ওঁরা যেভাবে পৃথিবীটা দেখেন সেটা শুধু আলাদা নয়, খুব আকর্ষণীয়ও বটে! চরিত্রটাকে কাটাছেঁড়া করেছি৷ সব রূপান্তরকামী মানুষ যেমন হন, হাড়ে মজ্জায় সেটাই ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছি।এটি আমার কাছে স্পেশাল, কারণ এটি আমাকে একজন অভিনেতা হিসাবে বেড়ে উঠতেও সাহয্য করেছে। ’

এই ছবিটি একটি প্রতিশোধের গল্প বলবে। যেটির পরিচালনা করেছেন অক্ষত অজয় শর্মা। ছবির প্রযোজনা করছে জি স্টুডি ও এবং আনন্দিতা স্টুডিও।আপনি অনুমান করতে পারেন যে নওয়াজউদ্দিন এই চরিত্রের জন্য কতটা পরিশ্রম করেছেন। নিজের চরিত্র সম্পর্কে নওয়াজউদ্দিন বলেন- ‘আমি অনেক ভিন্ন এবং আকর্ষণীয় চরিত্রে অভিনয় করেছি, তবে হাড্ডি সবচেয়ে অন্য রকম৷’ আগামী বছর ছবিটি মুক্তি পাবে।

Tags:
COMMENT