আপনার বডির ফিগার যে রকমেই হোক না কেন, আপনি যদি সঠিক ডিজাইন ও রঙের স্কার্ট পরেন, আপনাকে ভালো দেখতে লাগবেই।পুরোপুরি ওয়েস্টার্ন স্টাইলের স্কার্ট না পরতে ইচ্ছে করলে, এটা ফিউশন পোশাক হিসাবেও পরা যায়। এর জন্য লং স্কার্টের সঙ্গে ভারতীয় কুর্তির স্টাইলিশ মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ করে নিলেই হল।

স্কার্ট পোশাকটি কিন্তু ফিগার-সংবেদনশীল পোশাক। অর্থাৎ সব ধরনের ফিগারে কিন্তু সব ধরনের স্কার্ট মানায় না। তাই আপনার ফিগারের সাথে মিল রেখে স্কার্ট নির্বাচন করুন।

বর্তমানেলং স্কার্টমিনি স্কার্টমাইক্রো স্কার্টজিপসি স্কার্টপ্লিটেড স্কার্টপেপলাম স্কার্ট- এরকমের হরেক রকমের স্কার্ট এখন মেয়েদের ওয়াড্রোবে খুললেই দেখা যেতে পারে। কিন্তু পরার আগে জেনে নেওয়া দরকার, কোন স্কার্ট কেমন দেখতে। তারপর ঠিক করুন সেটা আপনাকে মানাবে কিনা।

 

পুফ স্কার্ট: এই স্কার্টের সাইজ মাঝারি হয়। আর নিচের দিকটা অসমান থাকে। এই অ্যাসিমেট্রিকাল স্কার্ট এখন ভীষণ রকমের ইন। নিচের দিকটা সামঞ্জস্যহীন থাকায় এই স্কার্টটিকে বেশ ফ্যাশানেবল দেখায়।

 

লং স্কার্টঃ- আমাদের দেশের মেয়েরা লং স্কার্ট পরতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। লং স্কার্টের সাথে টি-শার্ট বা কুর্তি পরতে পারেন। যারা স্লিম তারা নির্বাচন করুন ছোট টপ বা টি-শার্ট। যারা একটু মোটা তারা নির্বাচন করুন হিপের নিচ পর্যন্ত লম্বা কুর্তি। লং স্কার্টের সাথে মানানসই টপস পরলে দেখতে বেশ ফ্যাশনেবল লাগে।

 

সার্কুলার স্কার্ট: এর ঘের বৃত্তাকার। ঘের বৃত্তাকার হওয়ার কারণে এই স্কার্ট কোমরের তুলনায় নীচের কুঁচির ঘের, অনেকটাই বেশি হয়। সার্কুলার স্কার্ট সব ধরনেরই হয়ে থাকে। যেমন- লং সার্কুলার স্কার্টশর্ট সার্কুলার স্কার্ট বা থ্রি-কোয়ার্টার। এই স্কার্টে তিনটি স্তরে নেট কাপড় দেওয়া থাকে। এই ধরনের স্কার্টের সাথে, বডি হাগিং টপস ভালো মানায়। তবে যারা টাইট পরেন না, তারা একটু লুজ ফিট কিন্ত শর্ট টপ পরলে মানাবে ভালো।

 

প্লিটেড স্কার্ট: আধুনিক মেয়েদের জন্য এই স্কার্ট খুব মানানসই। এ স্কার্টের ঘের অনেক বেশি থাকে এবং ভাঁজ ভাঁজ করা থাকে। স্কার্টটি লম্বায় কম থাকেহাটুর একটু নিচ পর্যন্ত। এই স্কার্টের সাথে ট্যাঙ্ক টপ পরতে পারেন।যারা অতটা সাহসি নন তারা ট্যাঙ্ক টপ-এর উপরে জিন্সের জ্যাকেটও পরতে পারেন।

 

একটা কথা মনে রাখবেন পোশাক সুন্দর লাগে তখনই, যখন আপনি সেটা কনফিডেন্সএর সঙ্গে ক্যারি করেন। তাই আপনাকে যদি পোশাকটি মানায় তবেই পরুন। হুজুগে গা ভাসাবেন না। সাজের রুটিশীলতায় আপনি অনেকেরই ফ্যাশন আইকন হয়ে উঠতে পারেন।  

Tags:
COMMENT