উৎসব মানেই বয়সের তোয়াক্কা না করেই মেয়েরা সাজগোজের প্ল্যানিং শুরু করে দেন। সারা বছরই প্রায় সময়ের অভাবে অথবা নিজের গাফিলতির কারণে রূপচর্চা বিষয়টা আমরা এড়িয়ে চলতে চাই। অথচ উৎসবের ভরা মরশুমের প্রাক্কালে নতুন সাজে নিজেকে সাজিয়ে তুলতে সকলেই মুখর হয়ে থাকেন। বিভিন্ন ধরনের Makeup ব্যবহার করেন অনেকে যেটা হয়তো নিজে আগে কোনওদিন ব্যবহারই করেননি। কিন্তু মেক-আপের বিশেষ ধারণা না থাকলে অনেক সময়ে অনেকেই মারাত্মক ভুল করে বসে এবং পুরো সাজটাই নষ্ট হয়ে যায়। তাই সাজের ক্ষেত্রে কোনওরকম আপস না করে এবার এক্সপার্টের মতামত নিয়ে সাজিয়ে তুলুন নিজেকে।

Makeup করতে বসে মেক-আপের ব্যবহার সম্পর্কে অনেকেরই কোনও স্পষ্ট ধারণা থাকে না। তাহলে চলুন বিউটি এক্সপার্ট ভারতী তনেজার থেকে জেনে নিই এমন কিছু বিউটি প্রোডাক্টস সম্পর্কে, যেগুলি আপনি নানা ভাবে ব্যবহার করে, আসন্ন উৎসবে নিজের সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলতে পারবেন।

লিপস্টিক দিয়ে বানান নেলপেইন্ট :

উৎসবে শৃঙ্গার করতে বসেছেন অথচ নখ ফ্যাটফ্যাটে সাদা রয়ে গেল, সেটা কি মানানসই হবে? একেবারেই নয় অথচ হাতে সময় নেই একেবারেই বা নেলপেইন্ট-এর শিশিটা শুকিয়ে গেছে। বাইরে বেরিয়ে কেনারও সময় নেই। কী করবেন এমন পরিস্থিতি হলে? বাড়িতে এমন অনেক লিপস্টিক থাকে যেটা লাগিয়ে বোর হয়ে গেছেন আপনি। সেটা ফেলে না দিয়ে একটি পাত্রে রেখে তার সঙ্গে ট্রান্সপারেন্ট নেলপেইন্ট মিশিয়ে ব্রাশের সাহায্যে ভালো করে মিক্স করে নিন। এবার নেলব্রাশের সাহায্যে সেটা নখে লাগিয়ে নিন। চাইলে এর সঙ্গে গ্লিটারও মিশিয়ে নিতে পারেন। আইশ্যাডো দিয়ে একই পদ্ধতিতে নেলপেইন্ট বানিয়ে নিতে পারেন।

টিপ : লিপস্টিক বা আইশ্যাডো দিয়ে নেলপেইন্ট তৈরি করার সময় খেয়াল রাখতে হবে যাতে মিশ্রণটি স্মুদ হয়, কোনও জমাট বাঁধা অংশ না থাকে।

ফাউন্ডেশন করবে কনসিলর-এর কাজ :

প্রতিবারই নতুন লুকে নিজেকে সাজাতে আগ্রহী থাকেন সকলে। কিন্তু মুখের প্রতিটি কোণা সাজিয়ে তুলতে আলাদা আলাদা বিউটি প্রোডাক্টস কেনার ক্ষমতা বা সামর্থ্য অনেকেরই থাকে না। এই পরিস্থিতিতে ফাউন্ডেশন, মুখের দাগছোপ লুকোতে যেমন সাহায্য করতে পারে তেমনি এতে লিপস্টিক বা আইশ্যাডো মিশিয়ে পোশাক এবং মুখের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতে বিভিন্ন রকমের হাইলাইটার হিসেবেও ব্যবহার করা যেতে পারে। হাইলাইটার ব্যবহার করলে ত্বকের রং যেমন আরও উজ্জ্বল হয়ে উঠবে তেমনি চিক বোনস-এর কনটু্যরগুলিও আরও শার্প ও স্পষ্ট হয়ে উঠবে। এছাড়াও ডার্ক সার্কলস, ত্বকের দাগছোপ লুকোবারও কাজ করবে কনসিলর হিসেবে। ত্বকে লাগাবার সময় একটু মোটা করে অ্যাপ্লাই করতে হবে।

টিপ : স্কিনটোন অনুযায়ী হাইলাইটার বাছুন।

ব্লাশার দিয়ে বানান লিপস্টিকের শেড :

চিকবোনস হাইলাইট করতে ব্লাশার ব্যবহার করা হয় ঠিকই তবে কেউ যদি লাইট মেক-আপ করতে চায় তাহলে আইশ্যাডো হিসেবেও এটি ব্যবহার করা যেতে পারে। যদি লিপস্টিক লাগাতে ইচ্ছে না করে অথবা ম্যাট ফিনিশ লুক রাখতে চান, তাহলে ম্যাট ব্লাশার দিয়ে ঠোঁট রাঙিয়ে নিন। এছাড়াও লিপস্টিকের সঠিক শেড যদি আপনার কাছে না থাকে তাহলে যে-শেডটি আপনার কাছে আছে, সেটি লাগিয়ে নিন প্রথমে। এর উপর ব্লাশারের অন্য একটি শেড লাগিয়ে সম্পূর্ণ আলাদা একটি লিপস্টিকের শেড তৈরি করে নিতে পারেন। আপনার কাছে গ্লসি ব্লাশার থাকলে ম্যাট লিপস্টিকে গ্লসি টাচও দিতে পারেন। চোখের জন্যও আপনি ব্লাশার ব্যবহার করতে পারেন।

টিপ : ঠোঁটে লিপস্টিকের শেড বদলাতে হলে অন্য রঙের ব্লাশারই ব্যবহার করুন।

অ্যাইশ্যাডো দিয়ে ভুরু কালার করুন :

আইশ্যাডোও নানা ভাবে ব্যবহার করা যায়। চিক বোনস হাইলাইট করা থেকে ঠোঁটের সৌন্দর্য বাড়ানো সব কিছুই করা সম্ভব এই একটি প্রসাধন সামগ্রী দিয়ে। ব্লাশার হিসেবে অনেকেই এটি ব্যবহার করেন। আপনার কাছে গোল্ডেন, সিলভার, ব্রোঞ্জ অথবা গ্লসি কালারের আইশ্যাডো থাকলে লিপগ্লস হিসেবে সেটি ব্যবহার করা যাবে।

আপনার কাছে ব্রাউন বা ব্ল্যাক আইশ্যাডো থাকলে দুটো রং মিলিয়ে ভুরু কালার করে নিতে পারেন। ফেস-এর ফিচার্স চেঞ্জ করতেও এটি হাইলাইট ও কনটু্যরিং-এর কাজ করবে। সামনের সাদা চুল কালার করার জন্য যদি সময় না থাকে তাহলে চটজলদি কালার করতে ব্রাউন বা ব্ল্যাক আইশ্যাডো ব্যবহার করতে পারেন, যদিও সেই কালার টেম্পোরারি হবে।

টিপ : হাইলাইটের জন্য সামান্য পরিমাণ আইশ্যাডোই যথেষ্ট।

মাসকারা ব্যবহার করুন আইব্রোজ সুন্দর করতে:

আইল্যাশেজ বড়ো দেখাবার জন্য মাসকারা ব্যবহার করা হয়। কিন্তু ভুরুর সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলতেও মাসকারা ব্যবহার করাই যায়। ডার্ক কালারের ভুরুর উপর ট্রান্সপেরেন্ট মাসকারা লাগান আর ভুরু যদি হালকা হয় ব্রাউন বা ব্ল্যাক মাসকারা অনায়াসেই ব্যবহার করতে পারেন। তাড়াহুড়োতে সামনের দিকের মাথার চুল যদি সাদা থেকেও যায় চটজলদি এফেক্ট দিতে চুলের গোড়া থেকে মাসকারার ব্রাশ বুলিয়ে নিন। এতে আপনাকে অসুবিধায় পড়তে হবে না।

টিপ : চুল কালার করতে কখনওসখনও মাসকারা ব্যবহার করা যেতে পারে।

 

Tags:
COMMENT