মাংসের মধ্যে আমরা সব থেকে বেশি খেয়ে থাকি মুরগির মাংস। মুরগির ঝোল বা কষা সাধারণ বাঙালি বাড়িতে হামেশাই হয়ে থাকে। তাই অতিথি আপ্যায়নে কিংবা নিজেদের স্বাদ বদল করতে একটু অন্য ধরনের মুরগির মাংস রান্নার রেসিপি নিয়ে আজ হাজির আমরা। ট্রাই করেই দেখুন, চেটেপুটে সকলে খেয়ে যাবে।

তাহলে দেখে নেওয়া যাক Shahi Chicken Manpasand রান্নাটা করতে কী কী উপকরণ লাগবে?

উপকরণ

১ টি টুকরো করে কাটা মুরগির মাংস, ৪ টি কুচোনো পেঁয়াজ, ১/২ কাপ টোম্যাটোর পিউরি, ১ কাপ টক দই, ১ চা চামচ রসুন বাটা, ১ চা চামচ আদা বাটা, ১ টি দারচিনি, ৩ টি লবঙ্গ, ২ টি ছোট এলাচ, ১ টি বড় এলাচ, ১ টেবিল চামচ পোস্ত, ১ টেবিল চামচ নারকেল কোরা, ১ চা চামচ লাল লংকার গুঁড়ো, আন্দাজ মতো নুন ও হলুদ, ১/২ কাপ ঘন ফ্রেশ ক্রিম, সামান্য টাটকা ধনেপাতা, ২ টেবিল চামচ সাদা তেল অথবা গাওয়া ঘি-ও ব্যবহার করতে পারেন।

প্রণালী

ছোটো এলাছ, বড়ো এলাচ, দারচিনি ও লবঙ্গ বেটে নিয়ে টক দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে ফেটিয়ে নিন। এবারে নুন, রসুন বাটা, আদাবাটা দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে নিন। মুরগির মাংসের মধ্যে ওই মশলাটা ভালো করে মাখিয়ে অন্তত চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা ম্যারিনেট করে রেখে দিন। অর্ধেক কাপ গরমজলে নারকেলকোরা ও পোস্ত আধ ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে পিষে নিয়ে ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে নিন। এবারে একটা পাত্রে তেল বা ঘি গরম করে পেঁয়াজ হালকা বাদামি করে ভেজে নিন। নুন, হলুদ, লংকার গুঁড়ো ও টোম্যাটোর পিউরি ওতে দিন।  দই মাখানো মুরগির মাংসটা ওর মধ্যে ঢেলে দিন। মুরগির মাংস সমেত পুরো মশলাটা ভালো করে কষতে থাকুন যতক্ষণ না মশলা থেকে তেল ছাড়ছে। এবার অল্প জল দিয়ে ঢাকা বন্ধ করে মাংসটা সেদ্ধ করুন। ঢাকা খুলে পোস্ত ও নারকেল ছাঁকা জলটা রান্নায় মিশিয়ে দিন। একটা ফুট উঠলে আঁচ থেকে নামিয়ে রাখুন। ফ্রেশ ক্রিমটা সাবধানে ফেটিয়ে নিন যাতে ঘি আলাদা না হয়ে যায়। রান্না মাংসটা পাত্রে ঢেলে উপর থেকে ফেটানো ফ্রেশ ক্রিম ঢেলে ধনেপাতা দিয়ে সাজিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

Tags:
COMMENT